দৌলতদিয়ায় ডাকাতি প্রস্তুতকালে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৩সদস্য গ্রেপ্তার 

1

কামাল হোসেন, রাজবাড়ী প্রতিনিধি।।
রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়ার নব নির্মিত ৭নম্বর ফেরি ঘাটের প্রবেশ মুখ থেকে বৃহস্পতিবার দিবাগত মধ্যরাতে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে হাতেনাতে তিন তরুণকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে রামদা ও ছোড়া সহ ডাকাতির আলামত উদ্ধার করা হয় ।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলো উপজেলার উত্তর দৌলতদিয়া সিদ্দিক কাজী পাড়ার দুলাল মোল্লার ছেলে জাহিদ মোল্লা ওরফে বাপ্পী (৩২), উত্তর দৌলতদিয়া হোসেন মন্ডল পাড়ার ধীরেন শীল এর ছেলে সবুজ শীল (২৫) ও দৌলতদিয়া ছাত্তার মেম্বার পাড়ার মনি ফকিরের ছেলে জুয়েল ফকির (২৮)। তাদের বিরুদ্ধে শুক্রবার সকালে ডাকাতির প্রস্তুতি মামলা দায়ের শেষে বিকেলে রাজবাড়ী জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
মামলার বাদী গোয়ালন্দ ঘাট থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) জাকির হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের দৌলতদিয়া ক্যানাল ঘাট এলাকায় অবস্থানকালে জানতে পারেন নবনির্মিত ৭নম্বর ফেরি ঘাট এলাকায় একদল দুর্বৃত্ত ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে। খবর পেয়ে রাত পৌনে তিনটার দিকে ৭নম্বর ফেরিঘাটের প্রবেশমুখে যাওয়ার আগেই পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সবাই দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। এসময় পুলিশ ধাওয়া করে হাতেনাতে জাহিদ মোল্লা ওরফে বাপ্পী, সবুজ শীল ও জুয়েল ফকিরকে গ্রেপ্তার করে। তাদের কাছ থেকে দুটি ধারালো বড় রাম দা, দুটি ছোড়া, নাইলন রশি, ছালার বস্তা ও মাঝারী আকারের একটি গাছের গুঁড়ি জব্দ করে। এসময় আরো ৭-৮ জন দৌড়ে পালিয়ে যায়।
প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদে এরা সবাই আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য বলে স্বীকার করেছে। শুক্রবার সকালে গ্রেপ্তারকৃত তিন জন সহ পলাতক রনি (২৮), রাজু মোল্লা (২৭), আশিক (২২), নুরু কাজী (২৬) সহ অজ্ঞাত আরো ৩-৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।
এ ব্যাপারে গোয়ালন্দ ঘাট থানার (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল-তায়াবীর বলেন, এরা সবাই চিহিৃত ডাকাত ও পেশাদার ছিনতাইকারী। তাদেরকে ডাকাতির প্রস্তুতি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে শুক্রবার বিকেলে রাজবাড়ীর আদালতে পাঠানো হয়েছে।